একজন মানবতার “ডাক্তার ভাই” এড্রিক বেকার।

ছবিতে হানিফ সংকেত এবং এড্রিক বেকার ২০১১ইং সাল

ডাঃ এড্রিক বেকার। পুরো নাম ডাঃ এড্রিক সাজিশন বেকার।নিউজিল্যান্ডের অধিবাসী এই পরোপকারী মানুষটি বিগত ৩৫ বছর ধরে দরিদ্র ও অসহায় মানুষদের বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছিলেন টাঙ্গাইল জেলার মধুপুর গড়ে। আর এজন্যে তিনি সেখানে চার একর জায়গার উপর গড়ে তোলেন ‘কাইলাকুঁড়ি হেলথ কেয়ার সেন্টার’।গ্রামের স্থানীয় সবার কাছেই ‘ডাক্তার ভাই’ হিসেবে পরিচিত ছিলেন। ২০১১ সালের ডিসেম্বর মাসে ইত্যাদির মাধ্যমে হানিফ সংকেত তুলে ধরেছিলেন মহান এই মানুষটির আত্মকথা। ইত্যাদিতে গ্রামবাসীর দাবীর প্রেক্ষিতে তাঁকে নাগরিকত্ব প্রদানের জন্য অনুরোধ করা হয়েছিল।গত বছর (০৫ আগষ্ট, ২০১৪ইং) এড্রিক বেকার বাংলাদেশের নাগরিকত্ব লাভ করেন। এই মহান মানুষটি আজ আমাদের মাঝে নেই। গত ০১ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ইং তারিখে দুপুর ২টায় তিনি তার প্রতিষ্ঠিত ‘কাইলাকুঁড়ি হেলথ কেয়ার সেন্টার’ এ শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর।
পরোপকারী এই মানুষটি কখনো নিজের পরিবার-পরিজনদের কথা ভাবেননি।বিয়েটা পর্যন্ত করেননি! নিজে কঠিন অসুখে ভোগলেও চলে যেতে পারেন নি এই দেশের মাটি ও মানুষের মায়া ছেড়ে । নিউজিল্যান্ড এর অধিবাসী মহৎ হৃদয়ের অধিকারী এই মানুষটি পেশায় একজন ডাক্তার। নিজ দেশে ডাক্তারি পাশ করে বিলাস বহুল জীবনের মায়া ত্যাগ করে জীবনের শেষ ৩১ টি বছর এই দেশের মাটি ও মানুষকে ভালবেসে , এই দেশের মাটি ও মানুষের সেবা করে গত ০১ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ইং সালে চলে গেছেন না ফেরার দেশে।মৃত্যুর পরও তিনি এ দেশের মায়া ত্যাগ করতে পারেন নি। তাই তার শেষ ইচ্ছা অনুযায়ী তাকে মধুপুরেই সমাহিত করা হয়েছে।
আর্তমানবতার সেবায় যারা জীবনের অর্থ খুঁজে পান এড্রিক বেকার ছিলেন তাদেরই একজন। আমরা তার আত্মার শান্তি কামনা করছি।
ডাঃ বেকার আমাদের দেশের সেসব ডাক্তারদের জন্য উদাহরন সৃষ্টি করে গেছেন যারা এমবিবিএস পাশ করেও গ্রাম থেকে শহরের দিকে চলে যায়।তিনি আমাদের দেশের হাজার হাজার এমবিবিএস পাশ করা ডাক্তারদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়ে গেছেন ইচ্ছা থাকলে কিভাবে মানবসেবা করা যায়।কিভাবে উচ্চ ডিগ্রীধারী হয়েও প্রত্যন্ত গ্রামের গরীব মানুষের সেবা করা যায়।

তিনি এই দেশের হাজার হাজার এমবিবিএস পাশ করা ডাক্তারদের উদ্দেশ্য আক্ষেপ করে কিছু কথা বলেছিলেন আর তা হলো , he said he was waiting for a successor. “Many students get MBBS degrees in the country every year. I’m waiting for one of them to come and take the responsibility to provide treatment to the poor People’s in the area.”

No one has come yet.

এই কথাটির চেয়ে আর দুঃখজনক কথা কি হতে পারে বলুন পাঠক?আমাদের দেশের বিভিন্ন প্রভাবশালী ব্যক্তি অর্থবিত্তের মালিক হয়ে দেশের টাকা বিদেশ পাচার করে বিদেশে ব্যবসা-বাণিজ্য করছে।আমার দেশের অনেক মানবসেবক রাজনীতি ব্যক্তি গত পাঁচ বছরে যা আয় করে তা দিয়ে তার ১৪গোষ্ঠি সারা জীবন বসে বসে খায়।অথচ এমন মহৎ কাজে একটি টাকাও ব্যয় করে না।এমবিবিএস সদ্য পাশ করা ছেলে-মেয়েটি টাকা আয় করার জন্য পাগলা কুকুরের মত হন্য হয়ে যায়।

অথচ একটি ভিন্ন দেশের নাগরিক,ভিন্ন ভাষার মানুষ নিজ দেশের আরাম আর আয়েশ রেখে একটি দারিদ্র দেশের মানুষকে সেবা দিতে চলে এসেছে।আর টাকা লাগলে প্রতি দুই বছর পর পর দেশে গিয়ে বন্ধুবান্ধবদের কাছ থেকে হাত পেতে চেয়ে এনে এই দেশের মানুষের সেবার কাজে ব্যয় করেছে।
এই যুগের মহা মানব তো আমরা তাকেই বলবো।আমারও একান্ত ইচ্ছে করছে আমার বাপ দাদার ভিটে ছেড়ে মরার পরে তার কবরের পাশে শায়িত হওয়ার জন্য।

এই সেপ্টেম্বর মাসের পহেলা তারিখে ২০১৫ইং তারিখে তিনি আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন না ফেরার দেশে।আমরা তাকে কখনোই ভুলতে পারি না, আর ভুলতে চাই না এমন মহান একটি ব্যক্তিকে।

শ্রদ্ধা,ভালোবাসা এবং সম্মান তার বিদেহী আত্মার প্রতি।

ভালো থাকবেন স্যার এড্রিক বেকার।আপনার মত মানব সেবক দরকার হাজার হাজার।

তথ্য সূত্র ঃ- ইত্যাদি এবং বিভিন্ন পত্রিকা।

ছবিঃ- অনলাইন থেকে।

লেখকঃ-

মোঃ শাহীন আক্তার।

#ডাঃএড্রিকবেকার।
#মানবসেবক।
#স্মৃতিগত।
#বাংলাদেশ🇧🇩।
#ভালোবাসাঅবিরাম।
#শ্রদ্ধা
সম্মান।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s