দিদি কিছু কথা শুনাইতাম!!!

দিদি কিছু কথা শুনাইতাম!!!

গত তিনদিন হলো মালায়েশিয়া সরকার এইদেশে অবৈধ শ্রমিক ধরার কাজে ব্যস্ত।সেখানে বেশি সংখ্যক অবৈধ শ্রমিকের তালিকাতে বাংলাদেশের নাগরিকরা প্রথম।প্রথম দিনের অভিযানে ১০৩৫জনের মধ্যে বাঙালি ৫১৫(খবর প্রবাসী নিউজ)।ভ্রমণ ভিসা,স্টুডেন্ট ভিসা,চিকিৎসা ভিসা ইত্যাদি ভিসা নিয়ে মালায়েশিয়াতে ঢুকার পর তারা আর কোথাও যায়নি।এমনই তথ্য পাওয়া গেলো এদেশের ইমিগ্রেশনের মহা পরিচালক দাতুক মোস্তফার আলীর কাছে।বিভিন্ন দেশের প্রায় ছয় লাখ লোক অবৈধ আছে এদেশে।তাদের কাজের সুবিধা দিতে রিহায়ারিং প্রোগ্রাম চালু করলেও কেউ কেউ করেছে(ধারণা করা হচ্ছে মোট অবৈধ শ্রমিকের ২৩%লোক আবেদন করেছে) আবার কেউ অবহেলা আর হয়রানির শিকার হয়েছে বলে জানা গেছে এই দেশের মিডিয়া থেকে।এইদেশের ১৬টি রাজ্যের ইমিগ্রেশনের ফোন নাম্বার প্রকাশ করা হয়েছে অবৈধ শ্রমিকের খবর জানানোর জন্য।তাতে করে বিভিন্ন দেশের শ্রমিকের সাথে বাঙালি শ্রমিকরা চরম আতঙ্কে দিনযাপন করছে,এমনকি রাতে বন-জঙ্গলে পালিয়ে বেড়াচ্ছে।এমতাবস্থায় বাংলাদেশের দূতাবাস সকল বাঙালিদের ভয় না পেতে নিষেধ করেছে!আর সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে রিহায়ারিং প্রোগ্রামে তাদের বৈধতা করার জন্য।(মালায়েশিয়া অভিবাসন ও প্রবাসী খবর এটা)

এবার একটু নিজের প্রতিবাদের কথা বলি দিদি,মনে কিছু করবেন না।:-
বাংলাদেশের নাগরিক দেশেও নিরাপদ নেই(এটা সরকারের অক্ষমতা), বিদেশেও নেই(এটাও পরোক্ষ ভাবে বাংলাদেশে সরকারের আর একটা অক্ষমতা)।দু’দিন হলো কবি ও লেখক ফরহাদ মজহার নিখোঁজ হলো,তারপর আবার তিনি উদ্ধারও হলো ভাগ্যের ঝোরে।কেউ কেউ ফিরে আর আসি নাই।
সরকারের সাফল্যের কথা যদি বলেন তার মধ্যে বৈদেশিক রিজার্ভ অন্যতম।আর সেটাই অর্জন করছে এই প্রবাসের বৈধ আর অবৈধ ভাবে বসবাস করা বাংলাদেশের কৃতদাসরা।আজ যে পদ্মা সেতু নিয়ে সরকারের বড় প্রশংসা সেটা কিন্তু এই প্রবাসী কৃতদাস ভাই-বোনেদের টাকা।তাদের রক্তের আর ঘামে অর্জিত এই মোটা অঙ্কের টাকা।আজ তারা নিরাপত্তাহীন,সরকারের উচিৎ এদের পাশে দাড়ানো।প্রত্যেক রাজনৈতিক দল ক্ষমতাতে যেতে মিথ্যা আশ্বাস দেয় জনগণ কে।দশ টাকার চাল,প্রত্যেক ঘরে ঘরে চাকুরী,ইত্যাদি সব প্রতিশ্রুতি।যা জনগণ এখন বুঝে গেছে, কেউ জনগণের সুখ চাই না,সবাই আখের গুছাই।তা নাহলে সুইস ব্যাংকে বাংলাদেশের বড় বড় লোকের টাকা অলস পড়ে রয়েছে।সে টাকা দিয়ে যদি আজ দেশে কর্মসংস্থান তৈরি করতো তাহলে আজ বিদেশে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অবৈধ ভাবে টাকা উপার্জন করতে আসতো না।সরকার যখন পারে না তখন জনগণকে তো আর বসে থাকলে চলবে না।তাই জীবনের মোড় ঘুরাতে এসে প্রবাসে বিশেষ করে এই মালায়েশিয়াতে অনেক বাঙালি অবৈধ ভাবে দিনযাপন করছে।তাদের কষ্টের কথা পরিবার ছাড়া শুনার মানুষ খুঁজে পাচ্ছে না।অথচ কদিন আগেও সরকার বুক চাপড়াতে চাপড়াতে এদের কষ্টে অর্জিত টাকার বড়াই দেখাত।তারা বৈধ আর অবৈধ হোক না কেন টাকা কিন্তু সেই বাংলাদেশে পাঠাচ্ছে, সরকারের কাছের লোকের মত সুইস ব্যাংকে কেউ অলস বসানোর জন্য জমা করছে না।তাদের উদ্দেশ্য দেশ,পরিবার আর পরিজনদের নিয়ে।আমি বিনীত অনুরোধ করবো প্লিজ দিদি(মাননীয় প্রধানমন্ত্রী)আপনি এই প্রবাসী কৃতদাসদের জন্য কিছু একটা করুন।প্রয়োজন পড়লে ৩০০জন সফর সঙ্গী নিয়ে মালায়েশিয়া সরকারের কাছে সাহায্য বা সহযোগিতা চান এদের জন্য।অথবা আপনি নাজিব রাজ্জাকের সাথে সরাসরি কথা বলুন।এখানে আপনার রাজনীতি নাও থাকতে পারে,না পারে ক্ষমতাতে যাওয়ার কোন সুযোগ।কিন্তু কয়েক লক্ষ্য বেকার কে আপনি একটা কর্মসংস্থান বিদেশে করে দিতে পারেন একটু চেষ্টা করলে।কিন্তু হাজার চেষ্টা করেও দেশে ঘরে ঘরে চাকুরী আপনি দিতে পারবেন না।এই সব মিথ্যা কথা বলে কোন লাভ নাই।যেটা করবেন সরাসরি,আর জনগণের জন্য।আপনি খাঁটি মানুষ কিন্তু আপনার আশেপাশে তো আর খাঁটি মানুষ নাই।আপনাকে বিভিন্ন ভাবে জ্ঞান দিয়ে নিজের আখের গুছাচ্ছে ক্ষমতার অপব্যবহার করে আপনারই আশেপাশের লোকজন।আপনি একা মানুষ কোন দিকে কি করবেন? প্রবাসী সকল বাঙালির পক্ষ থেকে আমি আপনার কাছে বিশেষ অনুরোধ এদের ভাগ্যের চাকা বন্ধ না করে ঘুরানোর ব্যবস্থা করুন।যদিও তারা অন্যায় করে অবৈধ হয়েছে,পেটের জন্য,দেশের জন্য,পরিবারের জন্য,আপনার জন্য। আজ তারা অবৈধ।  আশা করি আপনার মাধ্যমে একটা কিছু আশার বাণী এই কৃতদাস গুলো শুনতে পাবে।

কৃৃঞ্চ দাস।(ছদ্মনাম)
কৃতদাস,মালায়েশিয়া প্রবাসী।
তারিখ:-০৫/৭/২০১৭ইং।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s